Download WordPress Themes, Happy Birthday Wishes
Home / Featured / কিভাবে চিনবেন জাল ভিসা

কিভাবে চিনবেন জাল ভিসা

Share This:

ভ্রমণের জন্য এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাওয়ার জন্য ভিসার বিকল্প নেই। ভিসা অনেক ধরনের হয়ে থাকে। জব ভিসা, স্টুডেন্ট ভিসা, ভিজিট ভিসা, বিজনেস ভিসা, কনফারেন্স ভিসা ইত্যাদি।অনেক সময় ভিসা করাতে গিয়ে আপনি বিপাকে পড়তে পারেন। জাল ভিসা নিয়ে বিপাকে যেন না পড়তে হয় তার জন্য কিছু বিষয় জানা জরুরি।আসুন জেনে নেই জাল ভিসা থেকে বাঁচতে কী করবেন?

"Fake visa"ভিসা তথ্যের জন্য ওয়েবসাইট-সব দেশের ভিসা তথ্যের জন্য ওয়েবসাইট রয়েছে। এসব ওয়েবসাইট থেকে আপনি বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন। ভিসা আবেদনের জন্য সব প্রয়োজনীয় তথ্য ও আবেদনের ফর্ম দেয়া আছে।ভিসা কনসাল্টিং ফার্ম ভিসার জন্য অনেক কনসাল্টিং ফার্ম আছে। ভালো একটি ভিসা কনসাল্টিং ফার্ম খুঁজে বের করতে হবে।তবে যতদূর সম্ভব দালাল থেকে দূরে থাকা।এছাড়া ভ্রাম্যমাণ কোনো অফিস বা ব্যক্তি বা ভারচুয়াল কোনো ব্যক্তি থেকে দূরে থাকুন।

অ্যাম্বাসি-আপনি যে দেশে যেতে চান ওই দেশের অ্যাম্বাসিতে পরামর্শ নিতে পারেন। প্রত্যেক দেশের অ্যাম্বাসিতে পরামর্শ ডেস্ক রয়েছে। সেখানে গিয়ে আপনি পরামর্শ নিতে পারেন। তারা আপনাকে কখনোই ভুল তথ্য দেবেন না। এছাড়া সম্ভব হলে সরাসরি কোনো প্রতিষ্ঠান ভিজিট করুন। প্রধান কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলুন।

ইলেকট্রনিক ভিসা-ইলেকট্রনিক ভিসার মাধ্যমে আপনি প্রতারিত হতে পারেন। ইলেকট্রনিক ভিসা বাংলাদেশি পাসপোর্ট হোল্ডারদের জন্য প্রযোজ্য নয়।

অভিজ্ঞদের পরামর্শ-যে দেশে যেতে চান ওই দেশে যদি আপনার কোনো স্বজন থাকে তবে তাদের পরামর্শ নিতে পারেন। তিনি আপনাকে বিভিন্ন ধরনের তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করতে পারবেন। মনে রাখবেন ভিসার জন্য আপনিই যথেষ্ট। কোনো কনসাল্টিং ফার্ম বা ব্যক্তি ভিসার মালিক নন। শুধু অ্যাম্বাসিই ভিসা দিতে পারে। তাই কারো প্রলোভনে পা দেবেন না।

1,020 total views, 2 views today

Share This:

Submit Your Comments

x

Check Also

"Fellowship in USA"

নিউজিল্যান্ডে বিনা খরচে পড়াশোনা, প্রতি সপ্তাহে ২৭ হাজার টাকা

বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের স্কলারশিপ নিয়ে উচ্চশিক্ষার সুযোগ দিচ্ছে নিউজিল্যান্ড সরকার। বিনা খরচে পড়াশোনার ...